বড়দিনে আজ হরতাল

আর্যনীল মুখোপাধ্যায়

আজ মনে হয় চোখের নিমেষেই কেটে গেল কৌরব অনলাইনের পঁচিশটা বছর ১৯৯৮ সালে পরবাস পত্রিকার অনুপ্রেরণাতেই বাংলা কবিতার জন্য একটা নিভৃত জায়গা তৈরি করতে চেয়েছিলাম ইন্টারনেট বা অন্তর্জালেপত্রিকা শব্দটা ব্যবহারও করতে চাইনি কেন পত্রিকা? এর মধ্যে তো পত্রের কোন ব্যাপার নেই বরং অনলাইন ম্যাগকে অন্তর্জালিকা বা আন্তর্জালিকাই বলা হোক এভাবেই কৌরব অনলাইন শুরু হয় ১৯৯৮ সালে আমরা বলি দক্ষিণ এশিয় ভাষায় প্রথম বাংলা কবিতা আন্তর্জালিকা কিন্তু দক্ষিণ এশিয় না বলে অনায়াসে এশিয়ও হয়তো বলা যেত অন্য কোন এশিয় ভাষায় অন্তর্জালে এর আগে এমন কোন জালিকা ছিল এমন প্রমাণ এখনো পাইনি ইংরেজিতে ছিল সামান্য ৩-৪টি, যার মধ্যে একমাত্র (অস্ট্রেলিয়ার জ্যাকেট ম্যাগাজিন)-ই ছিল বলবার মতো

কৌরব পত্রিকার পুরনো কিছু কবিতা এই নতুন মাধ্যমে সংরক্ষণ করতে চেয়েছিলাম সেই তাগিদ থেকেই কৌরব অনলাইন প্রথম সংখ্যা প্রকাশ পেল ১৯৯৮ সালের সেপ্টেম্বরে তারপর পেরলো পঁচিশ বছর এই সিকিশতকের কবিতার একটা নির্বাচিত সংগ্রহ বহন করছে কৌরব অনলাইন ৬২/২০২৩ আশা করবো পাঠিকা/পাঠক এই নির্বাচন থেকে কৌরবের দ্বিতীয় প্রজন্মের কবিতার বিশেষত্ব ধরতে পারবেন পাশাপাশি পাবেন প্রথম কৌরব প্রজন্মের কবিতার অভিনবত্ব সম্বন্ধে একটা ধারণা কবিতার এই কাজটিতে আমাকে বিশেষভাবে সাহায্য করেছেন বাংলাদেশ ও কানাডার কবি মেসবা আলম অর্ঘ্যএই রৌপ্যজয়ন্তী সংখ্যায় আমরা আরো একটা কাজ করতে পেরেছি স্বতন্ত্র,স্বাধীন কয়েকজন বাঙালি চলচ্চিত্রকারের দীর্ঘ সাক্ষাতকারের মাধ্যমে সাম্প্রতিক বাংলা ছবির সমান্তরাল ধারাকে ধরতে, বুঝতে চেয়েছি পাশাপাশি ধরা রইলো মৃণাল সেন শতবর্ষ উপলক্ষে প্রবীণ অভিনেতা ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায় ও চলচ্চিত্র-আলোচক শিলাদিত্য সেনের সাথে আলোচনা এসব কাজে বিশেষ সহায়তা করেছেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপিকা সুমনা দাস সুর

কবি, কবিতা, শিল্প, দর্শনের সাথে বিবেকের, রাজনীতির সম্বন্ধ ঘন কাজেই বর্তমানে সারা পৃথিবী যে বর্বর মারণযজ্ঞ দেখছে মধ্যপ্রাচ্যের গাজায়, তা আমাদের হতবাক করে দেয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইউরোপে ইহুদিজাতি যে অমানবিক নাৎসী সন্ত্রাসে ষাট লক্ষ মানুষ হারিয়েছিলেন, সমাজজীবনের সর্বস্তরে, ভয়ার্ত পশুপালের মতো অত্যাচারিত হয়েছিলেন, সেই ইহুদিজাতিই, ইসরায়েলি নেতৃত্বে নিরস্ত্র সাধারণ ফিলিস্তিনিদের ওপর যুদ্ধের নামে চালিয়ে যাচ্ছেন এক নৃশংস অরাজকতা এ কাহিনির প্রচ্ছদে যদিও ইসরায়েল বনাম সন্ত্রাসবাদী হামাস সংগঠনের চলমান যুদ্ধ; তার তলে তলে দেখা যাচ্ছে নিরপরাধ মানুষ খুনের উপনিবেশী মারণোল্লাস পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষই এর প্রতিবাদ করে চলেছেন সর্বত্র আমরা তার ব্যতিক্রম নই তবু ফিলিস্তিনি মানুষের পরিস্থিতি অপরিবর্তিত মধ্যপ্রাচ্যের ওই অভিশপ্ত অঞ্চল থেকেই মানবসভ্যতার তিন প্রধান ধর্মের জন্ম ইসলাম, খ্রিষ্ট ও ইহুদী ধর্ম অনেক মহান মসজিদ,চার্চ ও সিনাগগ গাজায় ও তার চারপাশে যেমন বেথলেহেমও বড়দিনের প্রায় দু সপ্তাহ আগে আমার পুরনো বন্ধু, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ড্যানিশ কবি নিলস্হাও (Niels Hav)একটি কবিতা পাঠান আশ্চর্য! এই কবিতার সমানুপাতেই যেন ২৪শে ডিসেম্বর বেথলেমের পবিত্র চার্চ অফ নেটিভিটি, যিশুর জন্মস্থান,জানান এবছর সেখানে বড়দিন পালিত হবেনা যিশু আজ গুঁড়িয়ে দেওয়া পাথরের নিচে চাপা নিলস্এর কবিতা অনুবাদ না করে পারলাম না

নিলস্হাও