হীরক রায়চৌধুরীর কবিতা

তরুণ কবি হীরক রায়চৌধুরী বসিরহাটের বাসীন্দা। কিছুদিন হলো নানা পত্রপত্রিকায় ওঁর লেখা প্রকাশ পাচ্ছে। সরকারী কলেজের গ্ৰন্থাগারিক।শুদ্ধ রাগরাগিনীর নানা উৎস এসেছে তাঁর কবিতার ঘুমের ভেতরে, উদ্ধারের প্রয়াসে তারা সয়াহতা করে; আর ঘোড়ার ছবি মনে হলেই আমরা জীবনবাবুর স্বপ্নে মগ্ন হই, জ্যোৎস্নার মধ্যে তাদের ছায়াসহচর হয়ে যেতে থাকি, সেও হয়তো আর এক ঘুমের ভেতরে।

image003

 

 

ঘুমের ভিতরে

উদ্ধার নেই আর পশম

ঝরানো ঘুম থেকে

 

দরজা বন্ধ আছে

পিছনে রহস্যে কাঁদে কৌশিকী কানাড়া

গনগনে রোদে ভিজে নাগরদোলার

চালে হাঁটে ঠাঁইনাড়া

 

হাজার খাদক আর খিচুড়ির

মারামারি নাটকেরই ঠাটে

শুদ্ধ সারংও চলে ভয়েতে অবুঝ লয়ে

পেশাদার হাতের ভুলেতে

 

এক তেজালো দুপুরে

নাক দিয়ে চোখ দিয়ে

তখনি রক্ত ছোটে

জলের বদলে পথে ঘাটে

 

আমাদের পশম ঝরানো চিন্তারা

অকাল সকাল ছেনে উদাত্ত জোগিয়া

শোনে প্রহরীর বিশ্বস্ত সেই শস্ত্র যাদুতে

 

১৭/০৫/২০২০।

 

 

 

ঘোড়া

 

সাত লক্ষ হাওয়ার ঘোড়া সেইদিন

জল স্পর্শ ক'রে অদৃশ্য কাঁচের

সেতুর ওপর দিয়ে ফেনার মুক্তো

মেখে উড়ে এসেছিল

তারা কি শুনেছিল কেঁপে ওঠা

শিখার মতো সেইসব চারুকেশী রাগ

যারা পৃথিবীর কেন্দ্রবিন্দু

থেকে লোভনীয় হাসির

বাঁশিতে জেগে উঠে

সমুদ্রকিনারের পরিশ্রান্ত সেতারির

আঙুলের তারে চমৎকার

প্রতিমা আশাতীতভাবে

এঁকে দিয়েছিল!

 

এইসব দেখে উপকূলবর্তী যৌবনের

পতঙ্গ শিকারীরা দীক্ষা ও নাড়া

বাঁধার কথা ভেবেছিল প্রকৃতির ঘোড়ার

কাছে কান্না মদ আর

রক্তের কথা ভুলে গিয়ে।

 

২০/০৫/২০২০।

 

Copyright 2020 Hirak Roy Chowdhury Published 1st Sep, 2020.

image004

image005