বিতা

সঙ্ঘমিত্রা হালদার

 

===

 

 

 

 

প্রাপ্ত কবিতা

 

 

চাবি থেকে তালা পর্যন্ত সুষুম্না এমত সংবেদনে

বরফ তুলে নিচ্ছে আর প্ল্যাটফর্ম থেকে দ্রুত দৌড়ে আসছে

সেই থার্মোকলের সাদা---খুলি খুলে খোদাই করে জানলা

ইচ্ছেমত ঘুলঘুলির হাওয়া, ব্যভিচারী অন্নজল-- লোণা, আঁশটে

ভেসে যাচ্ছে স্টেশন চত্বরের বিকেল গড়ানো অপেক্ষা

কবরের চালচিত্রে সোনাবাঁধানো শাঁখা পলার ছিমছাম হাত

শ্যাওলা সরিয়ে মুখের ওপর ঝুঁকে এসে দ্যাখেচিৎকার করে

ওড়া থেকে জন্ম থেকে মৃত্যু থেকে প্রলোভন জেগে ওঠা ব্যকরণলিপি

ভীতি থেকে ভিত আর প্রীতি থেকে পিরিত সরিয়ে সরিয়ে

এলোচুলে সূর্যশশীর শুধু ফাঁদ, নিংড়ে তোলার সেই হত্যাদৃশ্য

পুনরায় নির্মিত হয় আর মনে রাখে আদিম খেলাটি জলভুল

 

(অনিন্দিতা গুপ্তরায়)

 

সঙ্ঘমিত্রার কবিতা

 

সঙ্ঘমিত্রা হালদার

ঠান্ডা স্পর্শে সুষুন্মার সাপ বেরিয়েছে এঁকেবেঁকে

সর্বত্র জেগেছে মোমের মতো আলো, যে নিরুপায়

তারও জমেছে মোমের মতো মন

শরীরের অন্ধকারে ভাস্কর্যের খাঁজ গড়াবার হেতু

সন্ধানীরা জ্বেলে নিচ্ছে পরম্পরা-মন

 

অন্ধ থাকবার দরুন আলো তোমাকেও মারবে সহস্রবার

সংবেদন চিরে আলো বসে যাওয়ার ওইটুকু অনুমতি দাও অন্ধজনে

 

এক বিকেল গড়ানো অপেক্ষা ক্রমে সেজে উঠছে কবরের চালচিত্রে

পায়ে পায়ে ঘুরঘুর করছে জলভুলের তেরাকোটা

জন্ম থেকে বড়ো হয়ে নিজেই নিজেকে খেলছে আদিম সে প্রলোভন

 

কবিতা ভাবনাঃ

 

আমরা কোনও কবিতা পড়তে গিয়ে যখন তার আঁচ-তাপের নানা সংক্রমণে আটকে যাই, তখন আবার ঘুরে দাঁড়াই। ফিরে ফিরে আসি কবিতাটারই কাছে। ভাঁজ-পরতের খোলা খেলায় সে আমাকে সফরসঙ্গী করে। কখনও বা একটা লেখার প্রণোদনা টের পাই। সে আমাকে বাধ্য করে একটা শাদা পাতার সামনে বসতে। রাগ উন্মোচনহেতু। আর এই কুণ্ডলী কবিতা প্রকল্পে আমি কবিতাটা পড়তে গিয়ে যেখানে আটকে থেকেছি কিছুক্ষণের আকর্ষণে ঠিক সেই জায়গাটা থেকে ফিরে এসেছি নিজের কাছে।

 

ভাবনা-সংবেদনের ডানা আস্তে আস্তে হাত পা মেলেছে। আমি তাকে এনে বসিয়েছি শাদা পাতায়। এই-ই আমার অংশগ্রহণ। মূলত Erasure Technique Compression Technique-কে অবলম্বন করেই এই লেখা। সুষুন্মা তার সংবেদন পাঠিয়েছে আমার ভাবনা-কুঠুরিতে। যা মূলত বরফের হিমশীলতা থেকে খানিকটা সরে গিয়ে বা সংকুচিত হয়ে সাপের ঠান্ডা-স্পর্শ জুগিয়েছে এঁকেবেঁকে। আর সেই জীবন্ত স্পর্শে বরফও আর তত বরফ নয়, সে পেয়েছে মোমের মসৃণতা, আলো। জন্ম থেকে মৃত্যু থেকে জেগে ওঠা আদিম প্রলোভন, আদিম খেলাটি জলভুল আর কবরের চালচিত্র গেঁথে ভাবনারা আস্কারা পেয়েছে নিজের প্রবৃত্তিমতো এক খেলায়। শব্দচিহ্ন গেঁথে গেঁথে প্রস্তুত করেছে একই পাত্রে আরও এক ভিন্ন পানীয়। হাতফেরতায় কিছু স্বাদ বদলে গেছে আপনা থেকেই। তিক্ত কষা না আমিষ টক গন্ধ সে তো আপনি বলবেন!

 

 

===

 

Copyright 2016 Kaurab ONLINE Published 31st Dec, 2016.