কবিতাকুণ্ডলী প্রকল্প

সূচনার কবিতা

 

কবিতার কুণ্ডলী প্রকৃতি নির্মাণ দেখাতে গেলে একটি কবিতা দিয়ে শুরু করতে হয়। দোলনচাঁপা চক্রবর্তীর একটি পুরনো কবিতা দিয়ে শুরু হয় এই প্রকল্প। এই তথ্য স্বয়ং কবি জানতেন না। পরবর্তী কোনো কবিই জানতেন না ঠিক কারা এই প্রকল্পে অংশগ্রহণ করছেন। এই ভূমিকা লেখার সময়েও দোলনচাঁপা জানেন না তাঁর কবিতা দিয়েই শুরু হয়েছিলো কুণ্ডলী কবিতা প্রকল্প।

 

 

 


 

দোলনচাঁপা চক্রবর্তীর মূল কবিতা

 

এই তো তোমার আঁধারবর্ষ।

দুটো স্টেশনের মাঝখানে পড়ে থাকা তিন টুকরো লাশ

ছিন্ন শিরার মধ্যে দিয়ে খুনীর দুর্বৃত্ত ঘাম

 

পার্পল রঙের পর্দা মানে ফিল্মে একটা মৃত্যু দেখানো হবে।

প্রবাসী ল্যাভেন্ডার, দেশজ শৈলী দিতে তিলে তিলে মারবে আমায়

 

ভাগের পতাকা থেকে ছিটকে আসা ঘৃণা ও হরিয়ালির চাঁদ

ছাপিয়ে বেজে ওঠেন পারভীন

 

অথচ ল্যাভেন্ডার, ডিপ্রেশনের জন্য, স্নায়ু ঠান্ডা করার জন্য ভালো। ঘুম এনে দ্যায়।

স্বপ্নে আসো মাঝি, বৈঠায় আসো

 

ধান দাও, দুর্ব্বা দাও, হলুদ স্বস্তিকার মাঝে রক্তচিহ্ন আঁকো!

সমান্তরাল পোষা পৃথিবীর কাটা নলি থেকে

জন্ম মুছে যাক। মৃত্যু

মুছে যাক।